tal-feature-image

সেরার সেরা দাবাড়ুগণ ২: মিখাইল তাল, দ্য ম্যাজিশিয়ান ফ্রম রিগা ২য় পর্ব

ইমরান শরীফ শুভ
3.7
(3)
Bookmark

No account yet? Register

যদি আপনি ভাগ্য সহায় হওয়ার অপেক্ষায় বসে থাকেন, তবে জীবন অনেক বিরক্তিকর হয়ে যায়। 

মিখাইল তাল

দাবা নিয়ে চলমান ধারাবাহিকের শুরুটা আমরা করেছি অষ্টম বিশ্বচ্যাম্পিয়ন মিখাইল নেখমেভিচ তালকে দিয়ে। প্রথম পর্বে আমরা তালের বাল্যকাল, দাবায় আগমন, উত্থান, তাঁর খেলার ধরন, ধীরে ধীরে শক্তিশালী খেলোয়াড়ে পরিণত হওয়া এসব দেখেছি। আজকের পর্বে তাঁর বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার সোপান ক্যান্ডিডেট টুর্নামেন্ট এবং তারপর রেকর্ড সৃষ্টি করে বিশ্বজয় আলোচনায় আসবে। আগামীতে তালের মুকুট হারানো, বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ পরবর্তী ক্যারিয়ার, অসুস্থতা, ব্যক্তিগত জীবন, মৃত্যু এবং তাঁর স্মরণিকা নিয়ে আলোচনা করা হবে। 

পরবর্তী পর্বগুলোতে হোসে রাউল কাপাব্লাঙ্কা, অ্যালেকজান্ডার অ্যালেখাইন, আনাতোলি কারপভ এমন বিশ্ববিজেতাগণ যেমন আবির্ভূত হবেন, সাথে সাথে মুকুটহীন সম্রাটদেরও আমরা ভুলবো না; পল চার্লস মরফি, রশিদ নাজমুদ্দিনোভ যার উৎকৃষ্ট উদাহরণ। 

তাল এবং রশিদ
মিখাইল তালকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন রশিদ নাজমুদ্দিনোভ। চিত্রসূত্র: ChessGames

ক্যান্ডিডেট টুর্নামেন্ট ১৯৫৯ 

তাল ১৯৬০ সালে বতভিনিকের সাথে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেন এই ক্যান্ডিডেট টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দ্বারা। ১৯৫৯ সালে যুগোস্লাভিয়ার ব্লেড-জাগ্রেব-বেলগ্রেডে অনুষ্ঠিত হওয়া এই ক্যান্ডিডেট টুর্নামেন্টটি ছিল দাবার ইতিহাসে সর্বকালের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এক টুর্নামেন্ট। এতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন আট জন। তাদের অর্ধেকই ছিলেন সেসময়ের সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বা পরবর্তী বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। প্রতিযোগীদের মধ্যে তাল ছাড়া ছিলেন পল কেরেস, তিগ্রান পেত্রসিয়ান, পল বেঙ্কো, ভাসিলি স্মিস্লভ, সভেতজার গ্লিগোরিচ, ববি ফিশার এবং ফ্রেড্রিক ওলাফসন। সেসময়ের নিরিখে যাদের মধ্যে স্মিস্লভ ছিলেন সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর তাল, পেত্রসিয়ান ও ফিশার ভবিষ্যতের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। 

দাবার বোর্ডে ভুল চাল অবশ্যই ভালো নয়, তবে ভুল সবসময় এড়ানোও যায় না। বাকিদের মতে যেটা ভুলত্রুটিহীন আদর্শ খেলা, আমার কাছে সেটা বেরঙিন! 

মিখাইল তাল 
তাল
তালের ১৯৬৮ সালের একটি ছবি। চিত্রসূত্র: উইকিমিডিয়া কমন্স

প্রতিটি খেলোয়াড় সবার সাথে চারটি করে ম্যাচ খেলেন এবং সব ম্যাচ শেষে পয়েন্ট তালিকা দাঁড়ায় এমন – 

ক্রমিক নম্বরনামপয়েন্টজয়-হার-ড্র
প্রথমমিখাইল তাল ২০/২৮(+১৬ -৪ =৮)
দ্বিতীয়পল কেরেস ১৮.৫/২৮ (+১৫ -৬ =৭)
তৃতীয়তিগ্রান পেত্রসিয়ান ১৫.৫/২৮ (+৭ -৪ =১৭)
চতুর্থভাসিলি স্মিস্লভ ১৫/২৮ (+৯ -৭ =১২)
পঞ্চম (যৌথ)সভেতজার গ্লিগোরিচ ১২.৫/২৮ (+৬ -৯ =১৩)
পঞ্চম (যৌথ)রবার্ট জেমস ফিশার (ববি ফিশার) ১২.৫/২৮ (+৮ -১১ =৯)
সপ্তমফ্রিডরিক ওলাফসন ১০/২৮ (+৬ -১৪ =৮)
অষ্টমপল বেঙ্কো ৮/২৮ (+৩ -১৫ =১০)

টুর্নামেন্ট জয়ী হিসেবে তাল বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ ম্যাচের জন্য যোগ্যতা অর্জন করেন। 

ববি ফিশার
সর্বকালের অন্যতম জনপ্রিয় দাবাড়ু ছিলেন ববি ফিশার। চিত্রসূত্র: ব্রিটানিকা 

ইতিহাস সৃষ্টি 

প্রস্তুতিপর্ব 

১৯৬০ বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ হতে চলেছিল এক জমজমাট লড়াই। তাল তাঁর আত্মজীবনী লেখার আগেও এই চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে একটি স্বতন্ত্র বই লিখেছিলেন। আত্মজীবনীটিতে তাল এক অধ্যায়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে আলোচনা করেছেন। আর Tal-Botvinnik 1960 বইয়ে প্রতিটি ম্যাচ ধরে ধরে বিস্তারিত বর্ণনা করেছেন। তাল তাঁর প্রস্তুতিকে তিনভাগে ভাগ করেন, দাবা বিষয়ক (বিশেষত ওপেনিং), মনস্তাত্ত্বিক এবং শারীরিক। 

Tal plays Bronstein’s style, only much better. And absolutely, without Bronstein’s weaknesses. 

Al Horowitz

কোচ অ্যালেক্সান্ডার কোব্লেন্তজ এর সাথে মিলে তাল বতভিনিকের আগের ম্যাচগুলো বিশ্লেষণ করেন এবং ফলস্বরূপ বিভিন্ন ওপেনিং প্রেডিক্ট করতে পেরেছিলেন তারা যা ম্যাচের সময় কাজে এসেছিল। মনস্তাত্ত্বিক প্রস্তুতির অংশ হিসেবে তাল বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপের আগে একটি ছোট ওপেন টুর্নামেন্ট খেলেছিলেন। ম্যাচের আগে খেলার জন্য কতটা মুখিয়ে ছিলেন সেটা তালের উক্তিতেই বোঝা যায়, I felt ‘hungry’ for chess and from beginning to the 21st game I never felt too ‘full’.১ 

মূল ম্যাচ 

২১ গেমের ম্যাচের প্রথমটিতে তাল জয় পান। তালের মতে এটা ছিল তাঁর স্বভাববিরুদ্ধ, সাধারণত যে-কোনো টুর্নামেন্টের শুরুটা হত তালের হার দিয়ে। তালের এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু তাকে মজা করে দ্বিতীয় গেম থেকে খেলতে বলেছিল! কোচ এবং তাল সঠিক ধরতে পেরেছিলেন বতভিনিক সম্ভবত ফ্রেঞ্চ ডিফেন্স খেলবেন। পরের চার গেম ড্র হয় এবং এরপর টানা দুই জয় তুলে নেন তাল। এরমধ্যে ষষ্ঠ গেমের একুশতম মুভে তাঁর বিখ্যাত নাইট স্যাক্রিফাইস স্মরণীয়। তাল নিজে ঐ মুভের ব্যাপারে বলেন good, in that all other continuations are bad.

তাল দাবা খেলতেন ধ্রুপদী খেলার ধরনের পুরো বিপরীতে। কিন্তু সমস্যাটা শুধু তিনি এভাবে খেলেছেন তা-ই নয়, বরং জিতেছেনও।

গ্যারি ক্যাসপারভ 
গ্যারি ক্যাসপারভ
সর্বকনিষ্ঠ বিশ্বচ্যাম্পিয়ন গ্যারি ক্যাসপারভ। চিত্রসূত্র: MasterClass

এরপর একটা গেম তাল জেতার পর বতভিনিক টানা দুই জয় তুলে নিয়ে ঘুরে দাঁড়ান। এরপর তাল পুরো ম্যাচজুড়ে আর একটা গেমও হারেননি; উপরন্তু একাদশ, সপ্তদশ এবং ঊনবিংশ গেমে জিতে পুরো ম্যাচটি বলতে গেলে নিজের করে নেন। বাকি ম্যাচগুলো ড্র হয়। এগুলোর মধ্যে সপ্তদশ ম্যাচে তালের 12. F4 মুভটি চিরস্মরণীয়। এই মুভকে বলা হয়, Terrible, Anti-positional, Incredible! ধারাভাষ্যকারদের মতে মুভটি এমন ছিল যে, কোনো দাবার বই পড়েনি এমন কোনো আনাড়ির চাল। তাল পরবর্তীতে এটিকে নিজের সবথেকে মেমরেবল মুভ বলেছিলেন। নিঃসন্দেহে এটি অনেক সাহসী চাল ছিল। 

তাল এবং বতভিনিকের ম্যাচের স্কোরলাইন
১৯৬০ বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ ম্যাচের পুরো স্কোরলাইন। চিত্রসূত্র: ChessGames

উনিশতম গেমটি জেতার পর বাকি দুই গেম তালের শুধু ড্র করলেই চলত, এবং সেটিই ঘটেছিল। সবশেষে পয়েন্ট দাঁড়ায় তাল ১২.৫ এবং বতভিনিক ৮.৫। পুরো চার পয়েন্টের লিড নিয়ে তাল হয়ে যান সেসময়ের নিরিখে সর্বকনিষ্ঠ বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। মাত্র ২৩ বছর বয়সে মুকুট অর্জন করেন মিখাইল তাল। পরবর্তীতে ১৯৮৫ সালে গ্যারি ক্যাসপারভ এই রেকর্ড ভেঙে দেন, ২২ বছর ৭ মাসে তিনি বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হন। তালের থেকে এগার মাস ছোট অবস্থায় দাবার এই রাজমুকুট নিজের করে নিয়েছিলেন গ্যারি। 

শুভেচ্ছায় সিক্ত তাল
বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর তালকে ফুলের মালা দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হচ্ছে। চিত্রসূত্র: BritishPathe

চলবে … 

পরবর্তী পর্বে তালের বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ পরবর্তী ক্যারিয়ার, অসুস্থতা, ব্যক্তিগত জীবন ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা হবে। চোখ রাখুন অসামান্যর পর্দায়!

প্রচ্ছদ চিত্রসূত্র: উইকিমিডিয়া কমন্স

গ্রন্থসূত্র: 

  • Tal, Mikhail. Damsky, Iakov. The Life and  Games of Mikhail Tal. Cadogan Chess Series. 1998. ISBN: 1 85744 202 4. 
  • Tal, Mikhail. Tal-Botvinnik 1960. Revised & Expanded Fifth Edition. 2000. ISBN: 1-888690-08-9.  

তথ্যসূত্র:

আপনার অনুভূতি জানান

Follow us on social media!

আর্টিকেলটি শেয়ার করতে:
No Thoughts on সেরার সেরা দাবাড়ুগণ ২: মিখাইল তাল, দ্য ম্যাজিশিয়ান ফ্রম রিগা ২য় পর্ব

কমেন্ট করুন


সম্পর্কিত নিবন্ধসমূহ:

error: Content is protected !!